Posts Tagged ‘ প্রিন্স অব ত্রিনিদাদ ’

ব্রায়ান লারার অটোগ্রাফ ও মরিস ওদুম্বে

১৯৯৬ বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারানোর পর ব্রায়ান লারার অটোগ্রাফ পেয়েছিলেন কেনিয়ার অধিনায়ক মরিস ওদুম্বে

মরিস ওদুম্বে অনেকদিন ধরেই চেষ্টা করছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ কিংবদন্তী ব্রায়ান লারার একটা অটোগ্রাফ নেওয়ার। কিন্তু খুব বেশি কাছাকাছি আসার সুযোগই পাননি কখনো। ১৯৯৬ বিশ্বকাপের তিন বছর আগে একবার ইংল্যান্ডে অটোগ্রাফ চেয়ে প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলেন কেনিয়ান অধিনায়ক। ৯৬-এর বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো কেনিয়া সুযোগ পাওয়ার পর ওদুম্বের প্রথম মনে হয়েছিল যে, একই টুর্নামেন্টে তিনি খেলতে পারবেন তাঁর স্বপ্নের নায়ক ব্রায়ান লারার সঙ্গে। আর এবার অটোগ্রাফ চাইতে গেলে লারা নিশ্চিত ফিরিয়ে দেবেন না। এতেই মহাখুশি ছিলেন তিনি।

ফিক্সচার ঘোষণার পর দেখা গেল একই গ্রুপে আছে কেনিয়া-ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এর বেশি আর কী চাওয়ার থাকতে পারে ওদুম্বের? তিন বছর আগে যেখানে লারার অটোগ্রাফটাও নিতে ব্যর্থ হয়েছিলেন, সেখানে তিনি বিশ্বকাপের আসরে খেলতে পারবেন নিজের আদর্শ ক্রিকেটারটার বিপক্ষেই— এটা তো স্বপ্নেরও অতীত। ২৯ ফেব্রুয়ারী পুনেতে উইন্ডিজের বিপক্ষে মাঠে নামার আগের দিন পর্যন্ত এই আনন্দেই ডগমগ করছিলেন ওদুম্বে। তখনও ঘুনাক্ষরেও টের পাননি ভাগ্যদেবী তার কপালে আরো কত সৌভাগ্য লিখে রেখেছেন।

পরদিন বিশ্বকাপ ইতিহাসের অন্যতম বড় অঘটনের জন্ম দিয়ে লারার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৭৩ রানের জয় পেয়ে গেল ওদুম্বের কেনিয়া। আর এই জয়ের পেছনেও সবচেয়ে বড় ভূমিকাটা পালন করলেন তিনিই। ১০ ওভার বল করে মাত্র ১৫ রানের বিনিময়ে নিয়েছিলেন তিনটি উইকেট। ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কারটাও উঠেছিল তাঁর হাতেই। ‘আদর্শ দল’, ‘আদর্শ ক্রিকেটারের’ বিপক্ষে এই জয়টার পর ওদুম্বে বলেছিলেন, ‘এটা যেন বিশ্বকাপ জয়ের মতোই অনুভূতি।’

এখানেই শেষ না। ওদুম্বের বিস্ময়ের পারদ আরো কয়েক ধাপ ওপরে তুলে দেওয়ার জন্য এই ম্যাচের পর কেনিয়ার ড্রেসিংরুমে গিয়ে হাজির হলেন প্রিন্স অব ত্রিনিদাদ ব্রায়ান লারা স্বয়ং। বিস্ময়ের ঘোর কাটতেই অনেকক্ষণ লেগেছিল ওদুম্বের। কিন্তু তারপর ধাতস্থ হওয়ার পর কিছুটা রসিকতা করতেও ছাড়েন নি কেনিয়ার এই ঐতিহাসিক জয়ের নায়ক। মুখে একগাল হাসি ছড়িয়ে লারাকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, ‘এখন নিশ্চয়ই আপনি আমাদের সঙ্গে ছবি তুলতে চাইবেন?’ লারাও শুধু শুকনো মুখে অভিনন্দন জানিয়েই ফিরে যান নি। বেশ কিছুক্ষণ কাটিয়েছিলেন ওদুম্বের সঙ্গে। এক ফাঁকে অটোগ্রাফটা নিতে নিশ্চয়ই ভুল করেন নি ওদুম্বে!