Posts Tagged ‘ পেলে ’

স্বদেশীদের ভালোবাসা কেন পাননা লিওনেল মেসি?

একের পর এক তাক লাগানো সব কীর্তি করে ফুটবল বিশ্বকে হতবিহ্বল করে রাখছেন লিওনেল মেসি। মাঠে তাঁর পায়ের অসাধারণ কারুকাজ দেখে তাজ্জব বনে যায় ফুটবলপ্রেমীরা। ধারাভাষ্যকারেরা মেসির গোলের বর্ণনা দিতে গিয়ে বিশেষণ হারিয়ে ফেলেন! অবাক বিস্ময়ে ভাবেন, এরকম জাদুকরী ফুটবল খেলা কিভাবে সম্ভব? নিজের যোগ্যতার প্রমাণস্বরুপ মাত্র ২৪ বছর বয়সেই টানা তৃতীয়বারের মতো ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জিতেছেন বার্সেলোনার এই আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার। স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার জার্সি গায়ে করে চলেছেন একের পর এক গোল, জিতে চলেছেন একের পর এক শিরোপা। মেসি যে এসময়ের সেরা ফুটবলার, তা এখন মোটামুটি সুপ্রতিষ্ঠিত। ফুটবল বিশ্বে জোর বিতর্ক চলছে, তিনি সর্বকালেরই সেরা ফুটবলার কিনা, তা নিয়ে। এই বিতর্কের রসদ জুগিয়ে প্রায়ই গণমাধ্যমে সংবাদ শিরোনাম হন সর্বকালের সেরা দুই ফুটবলার হিসেবে খ্যাত পেলে-ম্যারাডোনা, সর্বকালের সেরা কোচ হিসেবে বিবেচিত স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন, ব্রিটিশ স্ট্রাইকার ওয়েইন রুনি, মেসির বার্সা সতীর্থ জাভি-পুয়োলসহ আরো অনেক অনেক ফুটবল তারকারা। পেলে ব্যাতিত অন্যান্য সবাই মেসিকে সর্বকালের সেরা বলে সরাসরি কোন রায় না দিলেও অন্তত সর্বকালের সেরার সংক্ষিপ্ত তালিকায় মনোনয়নটা দিয়েছেন জোড়ালো কণ্ঠে। ক্যারিয়ার শেষে মেসি অনন্য এক উচ্চতায় পৌঁছে যাবেন, এমন বিশ্বাসও আছে অনেকের। তবে এত কিছুর পরেও এখনও কিন্তু একটা হতাশা কুরে কুরে খাচ্ছে লিওনেল মেসিকে। মন জয় করা তো অনেক দূরের কথা, এখনও নিজ দেশ আর্জেন্টিনার মানুষদের সমর্থনটাও ভালোমতো আদায় করতে পারেননি তিনি। তাঁর প্রতি অভিযোগ: তিনি কাতালানদের, আর্জেন্টিনার নন। দেশের প্রতি ভালোবাসার ঘাটতি আছে কিনা, এমন কটু প্রশ্নের মুখেও পড়তে হয়েছে সমগ্র ফুটবল বিশ্বকে মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখা এই ফুটবলারকে। কেন স্বদেশীদের ভালোবাসা পাননা লিও মেসি? বিস্তারিত পড়ুন

মেসি কী পেলের চেয়েও এগিয়ে?

দুই মাস আগে ফুটবল কিংবদন্তী পেলেকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, ‘মেসি কী আপনার থেকেও ভালো ফুটবলার?’ জবাবে সরাসরি কোন উত্তর না দিয়ে সেটা বরং ভবিষ্যতের হাতেই ছেড়ে দিয়েছিলেন ব্রাজিলের তিনবারের বিশ্বকাপজয়ী এই স্ট্রাইকার। তিনি বলেছিলেন, ‘যখন মেসি আমার মতো ১,২৮৩টি গোল করবে, তিনবার বিশ্বকাপ জিতবে তখন আমরা আবার এটা নিয়ে কথা বলব।’ কিন্তু চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ম্যাচে বার্সেলোনার জার্সি গায়ে একাই পঁাচটি গোল করার  অনন্য কীর্তির পর আবারও ফুটবল বিশ্বে প্রশ্নটা ছুড়ে দিয়েছেন লিওনেল মেসি। সর্বকালের সেরা ফুটবলার কে? পেলে বনাম মেসির এই শ্রেষ্ঠত্বের প্রশ্নটা নিয়ে আরও একবার সরব হয়েছে ফুটবল দুনিয়া।

দুই প্রজন্মের দুই সেরা খেলোয়াড়ের মধ্যে শ্রেষ্ঠত্ব বিচার করা যায় কিনা, তা নিয়ে অবশ্য সংশয়ে আছেন ফুটবল বোদ্ধারা। পেলের সময় যেভাবে ফুটবল খেলা হতো, তার সঙ্গে এখনকার ফুটবলের অনেক পার্থক্য। ফুটবল এখন আগের চেয়ে অনেক গতিশীল। খেলাটার অনেক খঁুটিনাটি বিজ্ঞান এখনকার যুগের ফুটবলারদের নখদর্পনে। যা পেলের সময়ের ফুটবলের চেয়ে অনেক ভিন্ন ধরণের প্রেক্ষাপট তৈরি করে। তবে পূর্ণাঙ্গভাবে সেরা নির্নয় সম্ভব না হলেও বার্সেলোনার মেসি প্রতিনিয়তই স্মরণ করিয়ে দিচ্ছেন যে, ফুটবল ইতিহাসের সর্বকালের সেরা হওয়ার যোগ্যতাটা তঁার ষোলআনাই আছে। তিনি ফুটবলে এমন এক শিল্প তৈরি করে চলেছেন যেটা কেবল শুরুর পর্যায়ে। ফুটবল ইতিহাসে নিজের যে ভাস্কর্যটা মেসি গড়তে চলেছেন, তা এখন কেবলই শুরু হয়েছে মাত্র। ফলে আগামী দিনে তিনি নিজেকে কোন উচ্চতায় নিয়ে যাবেন সেটা ভবিষ্যতই বলে দেবে।

কিন্তু তাই বলে থেমে নেই মেসি ভক্তরা। চ্যাম্পিয়নস লিগে প্রথমবারের মতো এক ম্যাচে একাই পঁাচ গোল করার অনন্য কীর্তি গড়ার পর অনেকেই ইতিমধ্যে মেসির শ্রেষ্ঠত্ব ঘোষণাই করে ফেলেছেন। মেসির বার্সেলোনা সতীর্থ সেস ফেব্রিগাস রায় দিয়েই ফেলেছেন ফুটবলে মেসির মতো কোন খেলোয়াড় আর কখনও দেখা যাবে না। গত বুধবার তিনি বলেছেন, ‘মেসি ফুটবল ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়। আমরা হয়তো তার মতো করে খেলতে আর কাউকেই খেলতে দেখব না।’ মেসি  ভবিষ্যতে এক ম্যাচে ৬ গোল করার কীর্তিও গড়বেন বলে আশাবাদী বার্সা কোচ পেপ গার্দিওলা।

সব মিলিয়ে মেসি এ প্রজন্মের সেরা ফুটবলার, এটা হয়তো অনেকেই বিনা দ্বিধায় স্বীকার করে নেবেন। কিন্তু সর্বকালের সেরা হতে পারবেন কিনা, তা জানতে ভবিষ্যতেই চোখ রাখতে হবে সবাইকে।- টাইমস অব ইন্ডিয়া